বিকিনি পরা ছবিতে উত্তাপ ছড়ালেন পরীমনি

69

ঢাকাই চলচ্চিত্রের লাস্যময়ী নায়িকা পরীমনি। পছন্দ করেন সব সময় আলোচনায় থাকতে। এরইমধ্যে নিজের লাস্যময় চেহারা আর ফিটনেস দিয়ে কাবু করেছেন লাখ লাখ তরুণের মন।

ভক্তদের খুশি রাখতেই বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রূপে হাজির হন তিনি। রোববার তিনি তার ফেসবুক পেইজে আপলোড করলেন নতুন একটি ছবি।

যাতে দেখা গেল, সুইমিং পুলে বসে পোজ দিয়েছেন এই নায়িকা। আর সেই ছবি পোস্ট করেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। যার ক্যাপশনে তিনি লেখেন, কুল। ফেসবুকে পোস্ট করার পরপরই ছবিটিতে তার হাজার হাজার ভক্ত-অনুরাগীদের রিয়েক্ট ও কমেন্টে ভরে গেছে।

মুহূর্তেই পোস্টটিতে ১৬ হাজারেরও বেশি লাইক ও আড়াই হাজারেরও বেশি কমেন্ট পড়ে। অনেক ভক্তরা ছবিটির প্রশংসা ও অনেকে নেতিবাচক মন্তব্য করছেন।

কখনও তিনি মেজর কখনও কর্নেল

ডাক নাম সাহান। পুরো নাম ইমামুল ফেরদৌস সোহাগ। সেনাবাহিনীর মেজর, লে. কর্নেল আবার কখনও কর্নেল পরিচয়ে মানুষের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে প্রতারণা করে আসছিলেন ইমামুল ফেরদৌস।

সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরির প্রলোভনে এরই মধ্যে হাতিয়ে নিয়েছেন লাখ লাখ টাকা। নামও ছিল একাধিক। কখনও নিজেকে মেজর তাসফিক, ফেরদৌস আবার কখনও সোহাগ নামে পরিচয় দিতেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি তার। র‌্যাবের অভিযানে গ্রেফতার হয়েছেন সোহান।

প্রতারণার একাধিক অভিযোগে রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার কোটবাড়ি বিশ্বরোড এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।

গ্রেফতার ইমামুল ফেরদৌস সোহাগ (৩০) চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার নওহাটা গ্রামের জামাল হোসেনের ছেলে। দুপুরে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কুমিল্লা র‌্যাব-১১-এর সিপিসি-২ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকিব এসব তথ্য জানান।

নাজমুছ সাকিব বলেন, গ্রেফতারের পর ভুয়া মেজর সোহানের কাছ থেকে সেনাবাহিনীর ভুয়া কর্মকর্তার আইডি কার্ড উদ্ধার করা হয়েছে। যেখানে সেনা ইউনিফর্মে তার ছবি এবং মেজর বিজয় চৌধুরী লেখা রয়েছে।

এছাড়া চাকরি দেয়ার নাম করে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে নেয়া বিভিন্ন সার্টিফিকেট, প্রশংসাপত্র, জন্ম নিবন্ধন সনদ, চারিত্রিক সনদপত্র ও জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি উদ্ধার করা হয়। বিভিন্ন সময় মোবাইলে মিথ্যা পরিচয় দিয়ে টাকা নেয়ার অডিও রেকর্ডিংও উদ্ধার করা হয়। বিকেলে তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে র‌্যাব।