শহীদ আবরার ফাহাদ যেন জান্নাতে আবরারদের সাথেই পরম আনন্দে থাকে : আযহারী

106

বুয়েটের মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোষ্ট করেছেন সময়ের আলোচিত ইসলামি বক্তা মিজানুর রহমান আজহারী।

বুধবার রাত আটটার দিকে তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে পবিত্র কোরআন শরীফের সূরা আল-ইনফিতারের ১৩-১৪ নম্বর আয়াত উল্লেখ করে লিখেন, ‘শহীদ আবরার ফাহাদ যেন আবরারদের সাথেই পরম আনন্দে থাকে।’

ওই আয়াতে উল্লেখ করা হয়, ‘নিশ্চই আবরার তথা ন্যায়নিষ্ঠগণ থাকবে জান্নাতে পরম আনন্দে, আর ফুজ্জার তথা দুরাচারগণ থাকবে জাহান্নামে।’

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের বছরের ৬ অক্টোবর রাতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরে-বাংলা হলে ছাত্রলীগের কিছু উশৃঙ্খল কর্মীর হাতে নির্দয় পি’টু’নি’র শি’কা’র হয়ে মা”রা যান বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ।

এ ঘটনায় পরদিন নি’হ’তে’র বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় একটি মামলা করেন। এরপরে গত বছরের ১৩ নভেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক (নি’র’স্ত্র) মো. ওয়াহিদুজ্জামান ২৫ জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

অভিযোগপত্রের ২৫ জনের মধ্যে এজাহারভুক্ত মেহেদী হাসান রাসেল, অনীক সরকার, ইফতি মোশাররফ সকাল, মেহেদী হাসান রবিন, মেফতাহুল ইসলাম জিওন, মুনতাসির আলম জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মুজাহিদুর রহমান, মুহতাসিম ফুয়াদ, মনিরুজ্জামান মনির, আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা,

মাজেদুল ইসলাম, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, এএসএম নাজমুস সাদাত, মোর্শেদুজ্জামান জিসান ও এহতেশামুল রাব্বি তানিম ও এজাহারবহির্ভূত ইশতিয়াক আহমেদ মুন্না, অমিত সাহা, মিজানুর রহমান ওরফে মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত, এসএম মাহমুদ সেতু ও মোস্তবা রাফিদের নাম উল্লেখ করা হয়।