আমার বয়স ২৯, বিয়ে হচ্ছে না, রাতে ঘুমও আসছে না…

মহিলার বয়স ২৯। উচ্চ শিক্ষিতা। এমনকী ভালো চাকরিও করেন। তবে গায়ের রং চাপা হওয়ায় তাঁর বিয়ে হচ্ছে না। এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞর পরামর্শ হল, নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস রাখতে হবে। তবেই ভালো থাকা হবে সম্ভব।

প্রশ্ন: আমি একজন সিঙ্গল লেডি। অর্থাৎ আমার জীবনে আপাতত কোনও পুরুষ নেই।

আসলে আমি অর্থনীতি বিষয়ে করেছি মাস্টার ডিগ্রি। বর্তমানে একটি স্কুলে চাকরি করি। আমার জীবন মোটামুটি সেট। এমনকী পিএচডি করার উদ্যোগ নিয়েছি। তবে সমস্যাটা অন্য জায়গায়।

আসলে আমার বাবা-মা অনেকদিন ধরেই পাত্র খুঁজে চলেছেন। কিন্তু গায়ের রং চাপা হওয়ার জন্য কোনও ব্যক্তি আমায় বিয়ে করতে রাজি হচ্ছে না। ফলে দেখা দিচ্ছে সমস্যা।

আসলে ভারতে আমার মতো অনেকেই রয়েছে। আমাদের গায়ের রং চাপা। তাই আমরা সুন্দরী নই বলেই ধরে নিয়েছে সমাজ।

এই ঘটনা পরম্পরায় আমার বাবা-মা খুবই দুঃখ পেয়েছে। এমনকী আমার আত্মবিশ্বাসও তলানিতে। এক্ষেত্রে আমার ট্যালেন্টের তুলনায় গায়ের রং হয়ে গিয়েছে অত্যন্ত জরুরি। আসলে আমি গোটা জীবনই এই বিষয়টির থেকে দূরে যাওয়ার চেষ্টা করেছি।

কিন্তু বারবার করে সেই বিষয়গুলি ফিরে ফিরে এসেছে জীবনে। আমার কলেজে একটা বয়ফ্রেন্ড ছিল। তাঁকে খুবই ভালোবাসতাম। আমাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্কও ছিল। কিন্তু কলেজ পেরনোর পরই ও আমার সঙ্গে সম্পর্ক ছেড়ে ভেঙে দেয়।

ও এরপর অন্য শহরে চলে যায়। এমনকী আমার সঙ্গে কোনও কথাই বলেনি। এমনকী আমি চেষ্টা করার পরও ও আমার সঙ্গে কথা বলেনি। আমি শুধু চেষ্টাই করে গিয়েছি। এই সময়টা খুব খারাপ গিয়েছে।

তবে কিছুদিন যাওয়ার পর আমার সঙ্গে ওর এক বন্ধুর দেখা হয়। আমি তখন সেই বন্ধুকে ওর কথা জিজ্ঞেস করি। বন্ধুটি জানায়, কলেজের দিন থেকেই নাকি সবাই জানত যে ও আমার ব্যাপারে একেবারেই সিরিয়াস নয়।

ও সকলের সামনে আমাকে নিয়ে হাসি ঠাট্টা করত। এমনকী ‘কালী’ বলেও ডাকত আমায়। তাই আমার ওকে ভুলে যাওয়াই ভালো।

এই কথা শোনার পর আমার হৃদয় একেবারে ভেঙে যায়। আমি ভাবতেও পারিনি এমনটা ওই পিষাচ ভাবতে পারে। তবে সেই সমস্যা থেকে খুব কষ্টে পার হয়েছিলাম।

কিন্তু এখন আবার সেই একই সমস্যা আমায় ধাওয়া করে বেরাচ্ছে। এখন বুঝতে পারছি না যে এই সমস্যার সঙ্গে লড়াই করব কীভাবে? কোনও বিশেষজ্ঞ যদি একটু উত্তর দেন।

বিশেষজ্ঞের উত্তর
ফর্টিস হাসপাতালে সাইকিয়ট্রিস্ট ডা: কেদার তিলভে বলেন, আমার ভাবতেই খারাপ লাগছে যে আপনি নিজের জীবনে এমন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন। তবে এতকিছুর পরও আমি আপনাকে চিন্তা করতে বারণ করব।

কারণ আপনার এই গোটা ঘটনায় কোনও দোষ নেই। দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমরা এমন একটা দেশে বাস করি যেখানে সৌন্দর্যর সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয় গায়ের রংকে। এক্ষেত্রে উজ্জ্বল গায়ের রং হলেই যেন সুন্দর, এমন ধারণা। গায়ের রং চাপা হলেই সমস্যা তৈরি হচ্ছে।

পুরনো বিষয় ভুলে যান
আপনি আগেই বলেছেন যে, আপনার প্রাক্তন প্রেমিক গায়ের রং নিয়ে অন্যের সামনে মজা করেছেন। এই অবস্থায় আমার পরামর্শ হবে আপনি প্রথমে নিজের অতীত ভুলে যান।

কারণ এমন কোনও মানুষকে মনে রাখা একেবারেই উচিত হবে যে কিনা আপনাকে কোনও সম্মানই করেন না। এমনকী ওই মানুষটি অত্যন্ত অসৎ। আপনার কাছে আসার পিছনেও তাঁর একটি মতলব ছিল।

এভাবে হয় না
আমরা মনে হয় না যে আপনার এই পুরনো দিনের সম্পর্কের নানা রসায়নে নিজেকে বেঁধে রাখা উচিত হবে বলে। কারণ এই পৃথিবীতে স্বার্থপর মানুষগুলি আপনাকে দুঃখ ছাড়া আর কিছুই দেবে না।

এমনকী অন্যের সঙ্গে নিজেকে তুলনা করাও ঠিক হবে না। আপনি নিজের মতো করেই সুন্দর। এই বিষয়টি মাথায় রাখুন।

​নিজের খেয়াল রাখুন
আসলে আপনি নিজে অত্যন্ত শিক্ষিত। এমনকী পিএইচডি করতেও যাচ্ছেন শুনলাম। এই অবস্থায় আপনি একাই নিজের পরিবারের খেয়াল রাখতে পারবেন।

মনে রাখবেন, আপনি যদি নিজের প্রতিই বিশ্বাস না রাখতে পারেন, তবে নিজের সমস্যা আপনি নিজেই বাড়িয়ে ফেলছেন। তাই নিজের মধ্যে থাকা পজিটিভ শক্তিকে চিনে নিন। সেই সম্পর্কে ভাবুন। তবেই ভালো থাকতে পারবেন।