ভোরের মিলনে পাওয়া যায় সবচেয়ে বেশি আনন্দ! জেনে নিন কিভাবে

700

ভোরের মিলনে পাওয়া যায় সবচেয়ে বেশি আনন্দ! জেনে নিন কিভাবেদাম্পত্য জীবনে সঙ্গীর সঙ্গে মিলন খুবই স্বাভাবিক একটি ব্যাপার!

মিলনের উপযুক্ত সময় নিয়ে অনেকেরই অনেক রকম মতামত আছে, সাধারণত রাতের বেলা’ই মিলনের উপযুক্ত সময় বলেই আমরা জানি।

কিন্তু এই ধারণা কিন্তু ভুল, মিলনের সবচেয়ে উপযুক্ত সময় হলো ভোর। বিশেষজ্ঞদের মতে ভোরের মিলনে পাওয়া যায় সবচেয়ে বেশি উপকার। জেনে নিন এই বিষয়ে বিস্তারিত-

রাত বা অন্য কোনও সময় নয়, ভোরে মিলন হলো সবচেয়ে ভালো। ঠিক এমনটাই মত বিশেষজ্ঞদের। তাদের মতে ভোরে মিলনের ফলে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায়।

এরই সাথে সাথে ভোরে মিলনের ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও অনেক বেড়ে যায়। এসময় নারী এবং পুরুষ উভয়েরই যৌন হরমোন গুলির মাত্রা থাকে তুঙ্গে, যা যৌনমিলনের পূর্বশর্ত।

তবে একটা বিষয় খেয়াল রাখতে হবে, ভোরে মিলন যেন পরিষ্কার পরিচ্ছন্নভাবে হয়। তাই ঘুমাতে যাওয়ার সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হওয়া খুবই জরুরি। ভোরবেলা মিলন শরীরে অ্যান্টিবডি গঠন করতে সাহায্য করে।

সকালের মিলনের ফলে আর্থ্রাইটিস ও মাইগ্রেনের মত রোগ কম হয়। ভোরবেলা মিলনের ফলে শরীরের রক্ত সঞ্চালন সঠিক থাকে।

ভোরের মিলনের ফলে আপনি যেমন একদিকে শারিরীক ভাবে ফিট হয়ে উঠবেন তেমনই আপনার পার্টনারের সঙ্গে একটা সুন্দর দিন শুরু করতেও এনার্জি দেবে৷ তাই ভোরে মিলিত হন আপনার সঙ্গীর সাথে, সুস্থ থাকবেন, বাকি দিনটা আপনার ভালো কাটবে।

যৌন জীবনে সমস্যা অনেকেরই আছে। আর এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য অনেকেই সাহায্য নেয় ভায়াগ্রার। কিন্তু চিকিৎসকদের মতে ভায়াগ্রা খাওয়া শরীরের জন্যে খুবই ক্ষতিকর।

এতে অনেকরকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়। কিন্তু প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় যদি কিছু ঘরোয়া খাবার থাকে তাহলে ফিরে আসতে পারে যৌনজীবনের উদ্দীপনা। জেনে নিন এমনই ৫ টি ঘরোয়া খাবার-

১. হিংঃ চিকিৎসকরা বলছেন টানা ৪০ দিন ধরে রোজ ০.৬ গ্রাম হিং খেলে পেতে পারেন সুস্থ যৌন জীবন। রান্নায় মেশাতে পারেন হিং। প্রতিদিন সকালে ১ গ্লাস জলে এক চিমটি হিং ফেলে খেলেও পাবেন উপকারিতা।

২. সজনে ডাঁটাঃ পুরুষদের লিঙ্গ উত্থানের সমস্যা বা উদ্দীপনার ঘাটতিতে খুব ভালো কাজ করে সজনে ডাঁটা। তাই এরকম কোনো সমস্যা থাকলে প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় রাখুন সজনে ডাঁটা।

৩. জিরাঃ জিরার মধ্যে থাকা পটাশিয়াম ও জিঙ্ক যৌনাঙ্গে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়। ফলে যৌন উদ্দীপনা বাড়ে। প্রতিদিন সকালে এককাপ গরম জলে একটু জিরা দিয়ে খেয়ে নিন।

৪. আদাঃ আদার উপকারী গুণ সম্বন্ধে আমরা সকলেই জানি। তেমনই সুস্থ যৌন জীবনের জন্যেও আদা অনেক উপকারী। আদার মধ্যে থাকা ভোলাটাইল অয়েল স্নায়ুর উত্তেজনা বাড়ায় ও রক্ত সঞ্চালনের মাত্রা ঠিক রাখে। যেটা যৌন উত্তেজনা বাড়াতে সাহায্য করে।

৫. রসুনঃ রসুনেরও অনেক উপকারী দিক সম্বন্ধে আমরা জানি, তেমনই একটি উপকারী দিক হলো যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধি করা। রক্তে শর্করা ও কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে রসুন। প্রতিদিনের ডায়েটে রসুন থাকলে কমতে পারে লিঙ্গ না উত্থিত হওয়ার সমস্যা।