নিখোঁজ সেনা কর্মকর্তার ছেলের লাশ মিলল ইনানী সৈকতে

কক্সবাজারের ইনানী সমুদ্র সৈকতে গোসল করতে গিয়ে ভেসে যাওয়া স্কুলছাত্র আবদুল্লাহর (১৬) মরদেহ সাড়ে ৭ ঘণ্টা পর ভেসে এসেছে।

বুধবার (২০ জুলাই) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উখিয়া উপজেলার সোনারপাড়া এলাকার মেরিন ড্রাইভের পাশে ডেইল পাড়া সৈকত থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল করিম জানিয়েছেন, গতকাল বুধবার বেলা ১১টার দিকে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে গোসলে নেমে ইনানী রয়েল টিউলিপ হোটেল সংলগ্ন সৈকত থেকে এই স্কুলছাত্র নিখোঁজ হয়।

পরিবারের সদস্যরা মিলে কক্সবাজার ভ্রমণে এসে তারা ইনানীর তারকা হোটেল রয়েল টিউলিপে উঠেছিলেন।

তাকে উদ্ধারের জন্য সারা দিন ধরে কোস্ট গার্ড ও সৈকতের উদ্ধারকর্মীরা তৎপরতা চালালেও কেউ উদ্ধার করতে পারেনি। সাড়ে ৭ ঘণ্টা পর মরদেহ ভেসে আসে।

আবদুল্লাহ সেনাবাহিনীতে কর্মরত চিকিৎসক কর্নেল শহিদের ছেলে এবং তাদের বাসা ঢাকার মহাখালী ডিওএইচএস। সে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থী।

প্রসঙ্গত, গত কয়েকদিন ধরে সাগর উপকূলে বৈরি আবহাওয়া বিরাজ করছে। এ কারণে সাগর উত্তাল রয়েছে। সৈকতের ট্যুরিস্ট পুলিশ ও জেলা বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির নিয়োজিত উদ্ধারকর্মীদের শত বাধা উপেক্ষা করেই পর্যটকরা যখন তখন সাগরে নেমে পড়ছে।  

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ সৈকত ভ্রমণকারীদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন, যাতে জোয়ারের সময় কেবলমাত্র কক্সবাজারের লাবণী পয়েন্ট সৈকত ছাড়া আর কোথাও গোসল করতে না নামার জন্য।