পবিত্র কাবাঘরের চাবি ফিরিয়ে দিল তুরস্ক

পবিত্র কাবাঘরের চাবিসহ প্রাচীন প্রত্নতাত্ত্বিক নির্দশন মিসরকে ফিরিয়ে দিয়েছে তুরস্ক। গতকাল বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) মিসর থেকে অবৈধভাবে আসা এসব প্রাচীন নির্দশন ফিরিয়ে দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) ইস্তাম্বুলের তুর্কি ও ইসলামী শিল্প জাদুঘরে আনুষ্ঠানিকভাবে তা হস্তান্তর করা হয়।  

তুর্কি সংবাদ মাধ্যম আনাদোলু এজেন্সি থেকে জানা যায়, জব্দকৃত বস্তুর মধ্যে ছিল ঊনবিংশ শতাব্দীর কাবার একটি চাবি, পুরনো চাবি, ধাতব তালা এবং কাবার চাবির একটি ব্যাগ।

চাবি ও ব্যাগটি উসমানীয় শাসনামলে মিসর সরকারকে উপহার হিসাবে দেওয়া হয়েছিল।  

সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও জাদুঘর অধিদপ্তরের পরিচালক গোকান ইয়াজগি ঐতিহাসিক বস্তুগুলো ইস্তাম্বুলে নিযুক্ত মিসরের কনসাল জেনারেল তারেক খলিলের কাছে হস্তান্তর করেন।

এর আগে মিসর থেকে কার্গোযোগে আঙ্কারা বিমানবন্দরে ঐতিহাসিক নিদর্শনগুলো আসলে তা কাস্টম বিভাগ তা জব্দ করে। এরপর তা পরীক্ষা করা হয়।  

মিসরীয় কনসাল জেনারেল তুরস্কের সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, ‘প্রত্নতাত্ত্বিক বস্তুর অবৈধ বিক্রি নিষিদ্ধ করে তা ফেরানোর ব্যবস্থা নেওয়া হয় যা সত্যিই প্রশংসনীয়। হস্তান্তরের এ উদ্যোগ বিশ্ববাসীর জন্য অনুপম দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। ’

ইয়াজগি বলেন, ‘তুরস্ক সরকার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ বা সালের ইউনেস্কো কনভেনশনের মতো আন্তর্জাতিক চুক্তি এবং রেজোলিউশন বাধ্যবাধকতা কঠোরভাবে অনুসরণ করে।

এবং প্রতিবেশী দেশগুলোর সাংস্কৃতিক সম্পদ সুরক্ষার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করে। ’

উসামানীয় শাসনামলে পবিত্র কাবাঘরের জন্য গিলাফ, তালা ও চাবি বিশেষভাবে তৈরি করা হত। এরপর বিভিন্ন রাষ্ট্রপ্রধানদের সেগুলো উপহার দেওয়া হত। ইস্তাম্বুলের বিখ্যাত তোপকাপি প্রাসাদ জাদুঘরে পবিত্র কাবাঘরের ৫০টি এবং তুর্কি ও ইসলামিক আর্টস মিউজিয়ামে একটি চাবি রয়েছে।  

সূত্র : আনাদোলু এজেন্সি