শাপলা কুড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে ৩ শিশুর মৃত্যু

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়িতে বিলে শাপলা কুড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে ৩ শিশু-কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। এসময় সিফাত (১৫) নামের এক কিশোর আহত হয়। শনিবার দুপুর ২টার দিকে উপজেলার ধামারণ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হচ্ছে- উপজেলার পশ্চিম ধামারণ গ্রামের মোমেন আলী বেপারীর ছেলে রবিউল হাসান (১৫), একই উপজেলার সোনারং গ্রামের কামালের ছেলে সাইফুল ইসলাম লামিম (১০) ও

সোনারং গ্রামের সাইফুল মোল্লার  মেয়ে সানজিদা আক্তার (৯)। হতাহত তিন জনের মধ্যে দুই জন খালাতো ভাইবোন।  

বজ্রপাতে ৩ শিশু-কিশোরের মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন টঙ্গীবাড়ি থানার ওসি রাজিব খান। তিনি জানান, দক্ষিণ ধামারণ গ্রামের বিলে দুপুরে শাপলা কুড়াতে যায় ৪ শিশু-কিশোর।

শাপলা কুড়ানোর সময় আকস্মিক বজ্রপাতে ওই শিশু-কিশোরদের শরীর ঝলসে যায়। এ সময় বিলে থাকা স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে ৩ জনকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে।

পরে সেখানকার জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক রবিউল, লামিম ও সানজিদাকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত শিশু সিফাতকে (১০) টঙ্গীবাড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। 

এদিকে, শিশু-কিশোরদের মৃত্যুর খবরে স্বজনরা ছুটে আসেন মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে।

এ সময় স্বজনদের কান্না আর আহাজারিতে সেখানে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। নিহত কিশোর রবিউলের বাবা মোমেন আলী বেপারী বলেন, আমি অন্যত্র কাজে ছিলাম। খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে আসি।

সেখানে দেখতে পাই আমার সন্তান ও ভাগ্নি মারা গেছেন।নিহত সানজিদার বাবা সাইফুল মোল্লা বলেন, ৪ ভাইবোন মিলে বিলে শাপলা কুড়াতে যায়। বজ্রপাত ওদের জীবন কেড়ে নিয়েছে।